বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ১১:২৯ অপরাহ্ন

শরীয়তপুর পলিটেকনিকের ছাত্রীদেরকে অনৈতিক প্রস্তাব দেয়ায় শিক্ষকের অপসারণ দাবিতে বিক্ষোভ

শরীয়তপুর পলিটেকনিকের ছাত্রীদেরকে অনৈতিক প্রস্তাব দেয়ায় শিক্ষকের অপসারণ দাবিতে বিক্ষোভ

টাইমস রিপোর্ট ॥ ছাত্রীদেরকে অনৈতিক প্রস্তাব ও ছাত্রদের কাছ থেকে চাঁদা তোলার অভিযোগ ওঠেছে শরীয়তপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের কম্পিউটার টেকনোলজী বিভাগের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এর প্রতিবাদে রবিবার বিকেলে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেছে শিক্ষার্থীরা। এ বিষয়ে তদন্ত করে অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথা জানিয়েছেন উক্ত ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী আখতারুজ্জামান তালুকদার।
শিক্ষার্থীদের অভিযোগে জানা গেছে, প্রাকটিক্যাল পরীক্ষায় ফেল করানোর ভয় দেখিয়ে শরীয়তপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের কম্পিউটার টেকনোলজী বিভাগের শিক্ষক ড. আবু সাঈম ছাত্রীদেরকে অনৈতিক প্রস্তাব ও ছাত্রদের কাছ থেকে ১ হাজার টাকা করে চাঁদা দাবি করছে। এর প্রতিবাদে রবিবার বিকেলে প্রাকটিক্যাল পরীক্ষা শেষে কম্পিউটার টেকনোলজী শাখার বিভাগীয় প্রধান ড. আবু সাঈমের অপসারণ ও বিচারের দাবিতে উক্ত বিভাগের শতাধিক শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। সংবাদ পেয়ে আংগারিয়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মিন্টু মন্ডলের নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেছে। এসআই মিন্টু মন্ডল বলেন, অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পেলেই আমরা তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। রাহিদ, সায়েম হোসেন, ইসমাইল সাকিদার, ইমরান, শাহনাজ, খাদিজা ইয়াসমিন, সাথীসহ অন্যান্য শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেছেন, কম্পিউটার টেকনোলজী শাখার শিক্ষক ড. আবু সাঈম প্রাকটিক্যাল পরীক্ষায় ফেল করিয়ে দেয়ার ভয়ভীতি দেখিয়ে ছাত্রীদেরকে বিভিণœ সময় অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে আসছে। কখনো তার বাসায় যেতে বলে আবার কখনো হোটেলে গিয়ে তার সাথে দেখা করতে বলে। ছাত্রীদেরকে সকালে অথবা বিকেলে তার বাসায় গিয়ে একা দেখা করতে বলে। এছাড়াও বিনা রশিদে প্রতি শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ১ হাজার করে টাকা আদায় করার চেষ্টা করছেন উক্ত শিক্ষক। টাকা না দিলে ফেল করিয়ে দেয়ার হুমকি দিচ্ছেন তিনি। এ বিষয়ে শিক্ষার্থীরা প্রিন্সিপালের নিকট লিখিত অভিযোগ করেছেন বলে জানান শিক্ষার্থীরা। এসব অভিযোগ সত্য নয় বলে দাবি করেছেন অভিযুক্ত শিক্ষক ড. আবু সাঈম। তিনি বলেন, কেন শিক্ষার্থীরা আমার বিরুদ্ধে মিছিল করছে, কেনই বা এসব অভিযোগ করছে তা আমি বুঝতে পারছি না। এ বিষয়ে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ৬/৭ টি লিখিত অভিযোগ পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন উক্ত ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী আখতারুজ্জামান তালুকদার। তবে তিনি এ বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে যোগযোগ করে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানিয়েছেন এবং ইতোমধ্যে অভিযুক্ত শিক্ষক ছুটিতে চলে গেছেন বলেও জানান তিনি।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




উন্নয়ন সহযোগীতায়ঃ- সেভেন ইনফো টেক
error: কপি করা দন্ডনীয় অপরাধ,যে কোনো প্রয়োজনে কতৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করুন।