শনিবার, ২০ Jul ২০১৯, ০৫:৪৮ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদঃ-
শরীয়তপুরে নিখোঁজের ৩ দিন পর মাছ শিকারীর গলিত লাশ উদ্ধার শরীয়তপুরে ৮দিন জেলখেটে ধর্ষক জামিনে মুক্ত, আতঙ্কে ভিকটিমের পরিবার, সুশীল সমাজে ক্ষোভ শরীয়তপুরে কলেজছাত্রী গণধর্ষণের অভিযোগে ৪ পরিবহন শ্রমিকের বিরুদ্ধে মামলা, আটক-১ কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যার চেষ্টা, জাজিরা পৌর মেয়রপুত্র জেলহাজতে পাটুনীগাঁওয়ে কাঠমিস্ত্রীকে হাতুড়িপেটা শরীয়তপুরে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা কালকিনিতে মাদক মামলার পলাতক আসামী র‌্যাবের হাতে আটক শরীয়তপুরের কোয়ারপুরে দু’গ্রুপে সংঘর্ষে আহত ৮ ডামুড্যায় অগ্নিকান্ডে মুদি দোকানীর মৃত্যু শরীয়তপুরে পুলিশ ম্যাজিস্ট্রেসী কনফারেন্স
শরীয়তপুরে ৮দিন জেলখেটে ধর্ষক জামিনে মুক্ত, আতঙ্কে ভিকটিমের পরিবার, সুশীল সমাজে ক্ষোভ

শরীয়তপুরে ৮দিন জেলখেটে ধর্ষক জামিনে মুক্ত, আতঙ্কে ভিকটিমের পরিবার, সুশীল সমাজে ক্ষোভ


টাইমস রিপোর্ট ॥ শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলায় কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের করা মামলার একমাত্র আসামি জাজিরা পৌরসভার মেয়র ইউনুছ বেপারীর ছেলে মাসুদ বেপারী মাত্র ৮ দিনের মাথায় জামিনে মুক্তি পাওয়ায় আতঙ্কে রয়েছে ভিকটিমের পরিবার এবং এ ঘটনায় সুশীল সমাজে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। গ্রেপ্তার হয়ে জেল হাজতে প্রেরণের আট দিন পর ৭ জুলাই আসামী পক্ষের আইনজীবীর আবেদনের প্রেক্ষিতে সোমবার বিকেলে শরীয়তপুর জেলা ও দায়রা জজের দায়িত্বে থাকা অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মরিয়ম মুন মঞ্জুরী জামিন মঞ্জুর করে আসামিকে কারাগার থেকে মুক্তি দেওয়ার আদেশ দেন। এর আগে জাজিরার এক কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের করা মামলার প্রেক্ষিতে ১ জুলাই আদালতের মাধ্যমে মাসুদ বেপারীকে শরীয়তপুর জেলা কারাগারে পাঠানো হয়। এ সময় তার সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করা হয়। আমলি আদালতের বিচারক মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন জামিন ও রিমান্ড আবেদন নামঞ্জুর করেন।
এদিকে ধর্ষণ মামলার একমাত্র প্রভাবশালী আসামী জাজিরা পৌরসভার মেয়রপুত্র মাসুদ বেপারী জামিন পাওয়ায় ওই কলেজছাত্রী ও তার পরিবারের সদস্যরা আতঙ্কের মধ্যে আছেন। মঙ্গলবার ওই কলেজছাত্রীর বাবা স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, লজ্জা, ভয় আর আতঙ্কে মেয়েটি কোন রকম বেঁচে আছে। সারাক্ষণ ঘরে বসে কাঁদে। লজ্জায় মানুষের সামনে যেতে পারে না। এমন পরিস্থিতিতে আসামী জামিনে বের হয়ে এসেছেন। তারা প্রভাবশালী, তাই আতঙ্কে আছি।
জাজিরা থানা সূত্রে জানা গেছে, গত ২৯ জুন রাতে মেয়েটি ধর্ষণের শিকার হয়। জাজিরা পৌরসভার নিজ বাড়ির একটি কক্ষে আটকে রেখে ওই কলেজছাত্রীকে (১৮) ধর্ষণ করে জাজিরা পৌরসভার মেয়র ইউনুস আলী বেপারীর ছেলে মাসুদ বেপারী (৩১)। ধর্ষণের পর শ^াসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করা হয় ওই কলেজছাত্রীকে। এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার কলেজছাত্রী বাদী হয়ে জাজিরা থানায় মাসুদ বেপারীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও হত্যা চেষ্টার অভিযোগে মামলা করলে মাসুদ বেপারীকে ৩০ জুন ভোরে জাজিরা থানা পুলিশ গ্রেফতার করে। ধর্ষণের শিকার তরুণী জাজিরা স্কুল অ্যান্ড কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী। পড়াশোনার পাশাপাশি তিনি স্থানীয় একটি ক্লিনিকে চাকরি করেন। তার বাড়ি জাজিরা পৌরসভার আড়াচন্ডি এলাকায়। ভুক্তভোগী ওই ছাত্রী বলেন, মামলা করার পর থেকেই চাপে আছি। এখন মাসুদ মুক্ত হয়েছেন। শঙ্কায় আছি তিনি আমাকে মেরে ফেলেন কি না।’
শরীয়তপুরের সুশীল সমাজ প্রতিনিধি, শরীয়তপুর পৌরসভার সাবেক মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আব্দুর রব মুন্সী বলেন, ধর্ষণ মামলার আসামীরা আদালত থেকে এতো তাড়াতাড়ি জামিনে মুক্ত হলে বিচার বিভাগের প্রতি সাধারণ মানুষের বিশ^াসের জায়গায় সংকট দেখা দিবে এবং ধর্ষকরা উৎসাহিত হবে।
বিষয়টি নিয়ে কথা বলার জন্য মাসুদ ও তার বাবা জাজিরা পৌরসভার মেয়র ইউনুছ বেপারীর সঙ্গে মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করা হয়। কিন্তু তারা ফোন রিসিভ করেননি।
জাজিরা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বেলায়েত হোসেন বলেন, কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ মামলার আসামি জামিন পেয়েছেন, এমন তথ্য পেয়েছি। ভুক্তভোগী ও তার পরিবার শঙ্কার কথা জানিয়েছেন। তাদের যাতে কোনো ক্ষতি কেউ করতে না পারে, পুলিশ তা নিশ্চিত করবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




উন্নয়ন সহযোগীতায়ঃ- সেভেন ইনফো টেক
error: কপি করা দন্ডনীয় অপরাধ,যে কোনো প্রয়োজনে কতৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করুন।