মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০২:২১ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদঃ-
সংবাদদাতা/সাংবাদিক নিয়োগ শরীয়তপুরে বিএনপি’র ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত শরীয়তপুর পলিটেকনিকের ছাত্রীদেরকে অনৈতিক প্রস্তাব দেয়ায় শিক্ষকের অপসারণ দাবিতে বিক্ষোভ শরীয়তপুরে নিখোঁজের ৩ দিন পর মাছ শিকারীর গলিত লাশ উদ্ধার শরীয়তপুরে ৮দিন জেলখেটে ধর্ষক জামিনে মুক্ত, আতঙ্কে ভিকটিমের পরিবার, সুশীল সমাজে ক্ষোভ শরীয়তপুরে কলেজছাত্রী গণধর্ষণের অভিযোগে ৪ পরিবহন শ্রমিকের বিরুদ্ধে মামলা, আটক-১ কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যার চেষ্টা, জাজিরা পৌর মেয়রপুত্র জেলহাজতে পাটুনীগাঁওয়ে কাঠমিস্ত্রীকে হাতুড়িপেটা শরীয়তপুরে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা কালকিনিতে মাদক মামলার পলাতক আসামী র‌্যাবের হাতে আটক
ঢাকার বনানীতে অগ্নিকান্ডে নিহত আতিকের বাড়িতে শোকের মাতম

ঢাকার বনানীতে অগ্নিকান্ডে নিহত আতিকের বাড়িতে শোকের মাতম

sssssssssssssটাইমস রিপোর্ট ॥ ঢাকার বনানী এফ আর টাওয়ারে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় নিহত মির্জা আতিকুর রহমানের শরীয়তপুরের গ্রামের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। (আজ) শুক্রবার সকালে মরদেহ শরীয়তপুর সদর উপজেলার পূর্ব সারেঙ্গা গ্রামে নিজ বাড়িতে আনার পর এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। স্ত্রী-সন্তান, আত্মীয় স্বজন ও পাড়া-প্রতিবেশীদের কান্নায় বাতাস ভারী হয়ে ওঠে। মা পুত্র শোকে বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন। আতিককে শেষবারের মতো দেখার জন্য শত শত উৎসুক জনতা গ্রামের বাড়িতে ভীর জমায়। শুক্রবার বাদ জুম্মা তার নামাজে জানাজা শেষে পূর্ব সারেঙ্গা গ্রামের জামে মসজিদ কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়েছে।
স্থানীয় সূত্র ও নিহতের স্ত্রীর বড় ভাই মুকুল খান জানান, শরীয়তপুর সদর উপজেলার পূর্ব সারেঙ্গা গ্রামের মৃত আব্দুল কাদির মির্জার ছেলে মির্জা আতিকুর রহমান বনানীর স্ক্যান অয়েল কোম্পানীতে প্রায় ১৫ বছর যাবৎ এক্সিকিউটিভ পদে কর্মরত ছিলেন। তিনি স্ত্রী এ্যানি আক্তার পলি, চতুর্থ শ্রেণিতে পড়–য়া মেয়ে তানহা (১০) ও ছেলে রাফিউর রহমানকে (৪) নিয়ে ঢাকার মানিকদি এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন। প্রতিদিনের ন্যায় বৃহস্পতিবার তিনি এফ আর টাওয়ারের ১৩ তলায় কর্মস্থলে যান। অগ্নিকান্ডের ঘটনার পর বেলা আনুমানিক ১ টার দিকে স্ত্রীকে ফোনে ভবনে আগুন লাগার সংবাদ দেন এবং দোয়া করতে বলেন এবং তিনি বলেন পুরো ভবনে আগুন লেগে ধোয়ায় অন্ধকার হয়ে নিশ্বাস বন্ধ হয়ে আসছে। আমি শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে পারছি না। হয়তো আমি আর বাঁচবো না। আমার জন্য দোয়া কর। মৃত্যুর কিছুক্ষণ আগে দুপুর ১ টা ১০ মিনিটের সময় তার স্ত্রীর বড় ভাই মুকুল খানের সঙ্গে মোবাইল ফোনে শেষ কথা হয়। এ সময় তিনি মোবাইল ফোনে বলেন, এখান থেকে বের হওয়ার কোন রাস্তা খুঁজে পাচ্ছি না। আমার স্ত্রী সন্তানদের দেখে রাখবেন। এর কিছুক্ষণ পর আতিকের মোবাইল সংযোগ আর পাওয়া যায়নি বলে তিনি জানান।
সর্বশেষ বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ন‘টায় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আতিকের কাছে থাকা মোবাইল ফোনের সূত্র থেকে স্বজনদের জানায় কুর্মিটোলা হাসপাতালে আতিকের মরদেহ নেয়া হয়েছে। সেখানে গেলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, আতিকের মরদেহ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পরে মুকুল খানসহ অন্যান্য স্বজনরা রাত সাড়ে ১০ টায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে নিহতের লাশ সনাক্ত শেষে গ্রহণ করে। শুক্রবার সকাল ১১ টায় আতিকের মরদেহ তার শরীয়তপুরের গ্রামের বাড়িতে পৌঁছায়। মরদেহ গ্রামের বাড়িতে আনার পর এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। নিহত আতিকের স্ত্রী এ্যানি আক্তার পলি কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে বলেন, আগুন লাগার পর আমাকে ফোন দিয়ে বলে, পলি তুমি কি বাসায় এসেছো। আমার জন্য দোয়া করো। আমার পুরো ফ্লোর অন্ধকার হয়ে আসছে। আমি নিঃশ্বাস নিতে পারছি না। এই শেষ কথা আর আমার সাথে কথা হয়নি। আমার সবই শেষ হয়ে গেছে। আমি এখন কি নিয়ে বাঁচবো।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




উন্নয়ন সহযোগীতায়ঃ- সেভেন ইনফো টেক
error: কপি করা দন্ডনীয় অপরাধ,যে কোনো প্রয়োজনে কতৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করুন।