বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ১০:৫০ অপরাহ্ন

গোসাইরহাটে স্টূুডিও ব্যবসায়ী ধর্ষক রাজিব দাস গ্রেপ্তার

গোসাইরহাটে স্টূুডিও ব্যবসায়ী ধর্ষক রাজিব দাস গ্রেপ্তার

Shariatpur Pic, Arrested Rapist Rajib Das(02-07-18)টাইমস রিপোর্ট ॥ সোমবার সকালে শরীয়তপুরের গোসাইরহাট উপজেলার হাঁটুরিয়া বাজারের স্টূুডিও ব্যবসায়ী একাধিক নারী ধর্ষক রাজিব দাসকে গ্রেপ্তার করেছে গোসাইরহাট থানা পুলিশ। দুই সন্তানের জনক সুচতুর রাজিব দাস তার স্টূুডিওতে এলাকার নারীরা ছবি তুলতে গেলে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে একাধিক নারীকে ধর্ষণ ও যৌন হয়রানি করেছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। গোসাইরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এবিএম মেহেদী মাসুদ বলেন, মেয়েরা রাজিব দাসের স্টূুডিওতে ছবি তুলতে গেলে অনেক সময় একাধিক ছবি তোলার জন্য ওই স্টূুডিওতেই পোশাক পরিবর্তন করে নিত তারা। এসময় রাজিব দাস গোপন ক্যামেরায় তাদের ছবি তুলতো এবং পরবর্তীতে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে অনেক নারীকে যৌন হয়রানি ও ধর্ষণ করেছে। এলাকায় খোঁজখবর নিয়ে প্রাথমিকভাবে বিষয়টির সত্যতা পাই। এরপর রবিবার (১ জুলাই) নুপুর আক্তার নামে এক ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে গোসাইরহাট থানায় একটি ধর্ষণ ও পর্ণোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা (মামলা নং ১, তারিখ ১/৭/২০১৮ খ্রিঃ, ধারা- ২০০০ সনের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯ (১) এবং পর্ণোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১২ এর ৮(১) ধারা) করলে পুলিশ সোমবার সকালে তাকে ওই স্টূুডিও থেকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। গ্রেফতারকৃত রাজিব দাস ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।
মামলার বিবরণ, গোসাইরহাট থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শরীয়তপুরের গোসাইরহাট উপজেলার ঘাটাখান গ্রামের মাস্টার অনিল চন্দ্র সেনের পুত্র রাজিব দাস একই উপজেলার শরীয়তপুর-বরিশালের সীমান্তবর্তী এলাকা হাঁটুরিয়া বাজারে পূর্ণিমা ডিজিটাল স্টূুডিও এবং বিকাশ এজেন্ট হিসেবে দোকান খুলে ব্যবসা করে আসছেন। বরিশাল জেলার মুলাদী থানার পূর্ব চরপদ্মা গ্রামের জাফর সিকদারের স্ত্রী নুপুর আক্তার সম্প্রতি ওই পূর্ণিমা ডিজিটাল স্টূুডিওতে ছবি তুলতে ও বিকাশ থেকে টাকা উত্তোলন করতে যান। এসময় কৌশলে নুপুর আক্তারের মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে রেখে দেন রাজিব দাস। এরপর মাঝে মধ্যে নুপুর আক্তারকে ফোন দিয়ে প্রেম নিবেদন করেন রাজিব দাস। এতে সাড়া না পেয়ে কিছুদিন পরে রাজিব দাস ফোন করে নুপুর আক্তারকে হুমকি প্রদান করে যে, তোমার কিছু আপত্তিকর ছবি আমার কাছে আছে। তুমি আমার ডাকে সাড়া না দিলে ছবিগুলো তোমার শ্বশুর বাড়ির লোকজনকে দেখাবো এবং সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে দেব। লোকলজ্জার ভয়ে নুপুর আক্তার রাজিব দাসের ফোনে সাড়া দিয়ে স্টূুডিওতে যায়। এসময় রাজিব দাস স্টূুডিওর পিছনে ছোট একটি কক্ষে নিয়ে নুপুর আক্তারের ছবি মিশ্রিত কিছু পর্ণোগ্রাফি উলঙ্গ ছবি তাকে দেখায়। এতে হতবাক ও দিশেহারা হয়ে যায় নুপুর আক্তার। এসময় তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে রাজিব দাস। হাঁটুরিয়া বাজারে গেলে স্থনীয় লোকজন অভিযোগ করে বলেন, এর আগেও একাধিক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে রাজিব দাসকে স্থানীয় সালিশ বৈঠকের মাধ্যমে বিচার ও জরিমানা করা হয়েছে। রাজিব দাসের স্টূুডিওতে মহিলারা ছবি তুলতে গেলে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে তাদের যৌন হয়রানি ও ধর্ষণের চেষ্টা করে রাজিব দাস।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গোসাইরহাট থানার এসআই রুবেল হোসেন বলেন, আসামী রাজিব দাসের বিরুদ্ধে একাধিক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠেছে। বিষয়টি সুষ্ঠূুভাবে তদন্তের জন্য আমরা তার বিরুদ্ধে আদালতে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়েছি।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




উন্নয়ন সহযোগীতায়ঃ- সেভেন ইনফো টেক
error: কপি করা দন্ডনীয় অপরাধ,যে কোনো প্রয়োজনে কতৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করুন।