বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯, ০১:৩২ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদঃ-
শরীয়তপুর পলিটেকনিকের ছাত্রীদেরকে অনৈতিক প্রস্তাব দেয়ায় শিক্ষকের অপসারণ দাবিতে বিক্ষোভ শরীয়তপুরে নিখোঁজের ৩ দিন পর মাছ শিকারীর গলিত লাশ উদ্ধার শরীয়তপুরে ৮দিন জেলখেটে ধর্ষক জামিনে মুক্ত, আতঙ্কে ভিকটিমের পরিবার, সুশীল সমাজে ক্ষোভ শরীয়তপুরে কলেজছাত্রী গণধর্ষণের অভিযোগে ৪ পরিবহন শ্রমিকের বিরুদ্ধে মামলা, আটক-১ কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যার চেষ্টা, জাজিরা পৌর মেয়রপুত্র জেলহাজতে পাটুনীগাঁওয়ে কাঠমিস্ত্রীকে হাতুড়িপেটা শরীয়তপুরে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা কালকিনিতে মাদক মামলার পলাতক আসামী র‌্যাবের হাতে আটক শরীয়তপুরের কোয়ারপুরে দু’গ্রুপে সংঘর্ষে আহত ৮ ডামুড্যায় অগ্নিকান্ডে মুদি দোকানীর মৃত্যু
ইট ভাঁটায় শ্রমিককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

ইট ভাঁটায় শ্রমিককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

2016_11image_00_15_193500213maarpeet-llমেহেদী হাসান ॥ শরীয়তপুর সদর উপজেলার তালুকদার ব্রিক ফিল্ড নামে একটি ইট ভাঁটায় শ্রমিককে পিটিয়ে হত্যা করার অভিযোগ ওঠেছে। ওই শ্রমিকের নাম আলমগীর হোসেন মিয়া (৩৫)। সে কিশোরগঞ্জের ইটনা উপজেলার এলানজুরি গ্রামের জামির হোসেন মিয়ার ছেলে। সোমবার দুপুরে কযেকজন শ্রমিক আলমগীর হোসেনকে পিটিয়ে আহত করে। সংবাদ পেয়ে স্বজনরা উদ্ধার করে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করে। মঙ্গলবার ভোরে সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে মারা যায়। পুলিশ হত্যার অভিযোগে ওই ইট ভাঁটায় কর্মরত চার শ্রমিককে আটক করেছে। আলমগীরের মা আনোয়ারা বেগম বাদী হয়ে আট ব্যক্তিকে আসামী করে মঙ্গলবার শরীয়তপুর সদরের পালং মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।
পালং মডেল থানা সূত্র জানায়, শরীয়তপুর সদরের খিলগাঁও গ্রামে তালুকদার ব্রিক ফিল্ড অবস্থিত। ওই ইট ভাঁটায় কিশোরগঞ্জ জেলার ইটনা, করিমগঞ্জ ও সদর উপজেলার শ্রমিকরা কাজ করেন। আলমগীর হোসেন তার পরিবারের সদস্য ও আত্মীয়-স্বজন মিলে ১৫ জনের একটি দল নিয়ে গত নবেম্বরে ওই ইট ভাঁটায় কাজে যোগদান করেন। সোমবার সকালে আলমগীরের একটি মুঠোফোন সেট হারিয়ে যায়। ওই ঘটনা নিয়ে শ্রমিক জাকির হোসেন ভূইয়া, ওবায়দুল খান, আল আমীন ভূইয়া ও বাবুল হোসেন ভূইয়ার সাথে কথা কাটাকাটি হয়। তখন ওই ব্যক্তিরা আলমীর ও তার ছোট ভাই বাবু হোসেন মিয়াকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। স্বজনরা তাদের উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। মঙ্গলবার ভোরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আলমগীর হোসেন মারা যায়। মঙ্গলবার দুপুরে শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের সদস্যরা লাশ নিয়ে কিশেরগঞ্জে রওনা দেয়। পুলিশ হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে চার ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন ওই ইট ভাঁটায় কর্মরত কিশোরগঞ্জ সদরের বাসিন্দ জাকির হোসেন ভূইয়া, বাবুল হোসেন ভূইয়া, আল আমীন ভূইয়া ও কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জের বাসিন্দা ওবায়দুল খান।
নিহত আলমগীরের মা আনোয়ারা বেগম বলেন, জাকির হোসেন ভূইয়া, ওবায়দুল খান, আল আমীন ভূইয়া ও বাবুল হোসেন ভূইয়ার নেতৃত্বে ৮-১০ জন ব্যক্তি পিটিয়ে আমার ছেলেকে হত্যা করেছে। তারা প্রায়ই ইট ভাঁটার শ্রমিকদের টাকা ও মোবাইল ফোন সেট চুরি করে। ওই দিন আমার ছেলের মোবাইলটাও চুরি করেছে। বিষয়টি নিয়ে তাদের সাথে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে তারা আমার ছেলেকে হত্যা করে। আমি হত্যাকারিদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই। তালুকদার ব্রিক ফিল্ডের মালিক ফারুক আহম্মেদ তালুকদার বলেন, মোবাইল ফোন সেট চুরির ঘটনা নিয়ে শ্রমিকরা মারা মারি করার কারণে এক শ্রমিক মারা গেছে। ঘটনাটি নিয়ে থানায় হত্যা মামলা হয়েছে। ওই শ্রমিকের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা করা হবে। পালং মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হুমায়ুন কবীর বলেন, শ্রমিককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে চার জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদেরকে আদালতের সোপর্দ করা হবে। বাকি চার আসামী পালিয়ে গেছে, তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




উন্নয়ন সহযোগীতায়ঃ- সেভেন ইনফো টেক
error: কপি করা দন্ডনীয় অপরাধ,যে কোনো প্রয়োজনে কতৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করুন।