শনিবার, ২০ Jul ২০১৯, ০৬:১৬ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদঃ-
শরীয়তপুরে নিখোঁজের ৩ দিন পর মাছ শিকারীর গলিত লাশ উদ্ধার শরীয়তপুরে ৮দিন জেলখেটে ধর্ষক জামিনে মুক্ত, আতঙ্কে ভিকটিমের পরিবার, সুশীল সমাজে ক্ষোভ শরীয়তপুরে কলেজছাত্রী গণধর্ষণের অভিযোগে ৪ পরিবহন শ্রমিকের বিরুদ্ধে মামলা, আটক-১ কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যার চেষ্টা, জাজিরা পৌর মেয়রপুত্র জেলহাজতে পাটুনীগাঁওয়ে কাঠমিস্ত্রীকে হাতুড়িপেটা শরীয়তপুরে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা কালকিনিতে মাদক মামলার পলাতক আসামী র‌্যাবের হাতে আটক শরীয়তপুরের কোয়ারপুরে দু’গ্রুপে সংঘর্ষে আহত ৮ ডামুড্যায় অগ্নিকান্ডে মুদি দোকানীর মৃত্যু শরীয়তপুরে পুলিশ ম্যাজিস্ট্রেসী কনফারেন্স
জাজিরায় প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নিজের কণ্যাকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

জাজিরায় প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নিজের কণ্যাকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

murder759জাজিরা প্রতিনিধি ॥ প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নিজের ৮ বছরের শিশু কণ্যাকে ধারালো ছেনদা দিয়ে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করার অভিযোগ ওঠেছে জাজিরা উপজেলার জয়নগর মোল্লা কান্দি গ্রামের হত্যা মামলার আসামী মানিক হাওলাদারের বিরুদ্ধে। স্থানীয়রা জানান, মানিক হাওলাদার একটি হত্যা মামলায় দীর্ঘদিন জেল হাজতে থাকার পর সম্প্রতি জামিনে মুক্ত হয়। প্রতিপক্ষকে ফাঁসানোর উদ্দেশ্যে মঙ্গলবার দুপুরে হিরামনি নামে নিজের শিশু কণ্যাকে কুপিয়ে বাড়ির পাশে পাট ক্ষেতে ফেলে রেখে দেয়। তবে আহত শিশু হিরা মনির বাবা মানিক হাওলাদারের বলেন, দাদন হাওলাদার এবং তার পরিবারের লোকজন মিলে আমাকে হত্যা করতে এসে ধাওয়া দেয়। আমি দৌড়ে পালিয়ে গেলে তারা আমার মেয়েকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। আমি এ ঘটনার বিচার চাই। এদিকে শিশুটির পিতামাতা তার চিকিৎসায় আগ্রহ প্রকাশ না করায় স্থানীয় লোকজন শিশুটিকে পাট ক্ষেত থেকে উদ্ধার করে প্রথমে শরীয়তপুর সদর হাসপাতাললে নিয়ে ভর্তি করে। পরে শিশুটির অবস্থার অবনতি দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। পুলিশ মানিক হাওলাদারের লোকজনের দেয়া তথ্য অনুযায়ী ঘটনাস্থল থেকে ধারালো ছেনদাটি উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় জাজিরা থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।
জাজিরা থানা ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, জাজিরা উপজেলার চর জয়নগর মোল্যা কান্দি গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ২০১৬ সালের ৭ মার্চ সোনা মিয়া হাওলাদার নামে এক ব্যক্তিকে হত্যা করা হয়। এ হত্যা মামলায় মানিক হাওলাদার ১৩ নম্বর আসামী। মামলার বাদী একই গ্রামের দাদন হাওলাদার। এ মামলা আসামী মানিক হাওলাদার দীর্ঘদিন জেল হাজতে থাকার পর সম্প্রতি জামিনে মুক্ত হয়। এরপর উভয় পক্ষের মধ্যে আবারো বিরোধ দেখা দেয়। প্রতিপক্ষ দাদন হাওলাদার বলেন, মানিক হাওলাদার যে হত্যা মামলার আসামী, আমি সে মামলার বাদী। আমাদেরকে ফাঁসানোর জন্য মানিক নিজে অথবা তার দলের কোন লোকজন এ অবুঝ শিশু মেয়েটিকে হত্যার চেষ্টা করেছে। প্রশাসনের কাছে এ জঘণ্য ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে বিচার দাবী করছি। জাজিরা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. নজরুল ইসলাম বলেন, সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। এলাকার পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। আহত শিশু হিরামনি ঢাকা মেডিক্যালে চিকিৎসাধীন আছে। এ বিষয়ে এখনও কেউ অভিযোগ করেনি। মামলা হলে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
শরীয়তপুরের সহকারী পুলিশ সুপার (নড়িয়া সার্কেল) আব্দুল হান্নান বলেন, বিষয়টি শুনে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। তবে কে বা কারা মেয়েটিকে কুপিয়ে যখম করেছে তা এখন পযর্ন্ত জানা যায়নি। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। শিশুটির পরিবার দাবী করেছে, দাদন হাওলাদার গংরা মানিক হাওলাদারকে মারতে এসে তাকে না পেয়ে তার শিশু কণ্যাকে কুপিয়ে জখম করে ফেলে রেখে যায়।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




উন্নয়ন সহযোগীতায়ঃ- সেভেন ইনফো টেক
error: কপি করা দন্ডনীয় অপরাধ,যে কোনো প্রয়োজনে কতৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করুন।